বাহুবলের ফায়ার সার্ভিস ভবন নির্মাণে নিম্ন সামগ্রী ব্যবহার,অনিয়ম এবং দুর্নীতির প্রতিবাদে এলাকাবাসী খোদ গণপূর্ত বিভাগ  হতাশায় ॥   “এই ঠিকাদারের শক্তিশালী খুটি কোথায়?” 

অপরাধ ও দুর্নীতি জাতীয় জেলার খবর রাজনীতি

আইসিটি নিউজঃ আজিজুল ইসলাম সজীব,হবিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ 

হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলায় নির্মাণাধীন ফায়ার সার্ভিস ভবন নির্মাণ কাজে নানা অনিয়ম, নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহার নিয়ে এলাকাবাসী সহ খোদ গণপূর্ত অধিদফতর হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

এ ব্যাপারে, বাহুবল উপজেলা আওয়ামী-লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাইসহ  স্থানীয়  নেতৃবৃন্দ,সচেতন ব্যক্তিবর্গ সবাই এই কাজ নিয়ে হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

এ প্রতিনিধি সরেজমিন অনুসন্ধানে গেলে কাজের নানা অনিয়মের চিত্র পরিলক্ষিত হয়।

গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ওই ভবন নির্মাণের জন্য ফজলুল কবির নামে একজন টিকাদারকে ২ কোটি ৬০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। টিকাদারকে ১ বছরের সময় সীমা বেধে দেয়া হয়। নির্মাণ কাজ শুরু থেকে এলাকাবাসীর নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহার করা নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন। কিন্তুু কোন ফল হয়নি। বাউন্ডারি ওয়াল ১ নং ইট দ্বারা নির্মাণের কথা থাকলেও ২/৩ নং ইট ব্যবহার করা হয়েছে।

ভবনের পাশ গর্ত খনন করে ভরাট করা হয়েছে যা ভবনের স্হায়ীত্ব নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। কাজের বিল বোর্ড থাকার কথা থাকলেও বিল বোর্ডের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ঠিকাদার নিযুক্ত রাজমিস্ত্রী মীর মোঃ শাহীন এর কাছ এসব বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান বিল বোর্ড ছিল অফিসে নেয়া হয়েছে। যা কাজ নিয়ে লুকোচুরির অপচেষ্টা। বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণে ২/৩ নং ইট লাগানো কথা অকপটে স্বীকার করেন।

এ বিষয়ে গণপূর্ত অধিদফতরের সহকারী প্রকৌশলী হেলিম ভুইয়া সাথে মুঠোফোন যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান এ ঠিকাদারের কাজের মান ও মন্হর গতি নিয়ে উর্ধতন কতৃপক্ষ সহ আমরা বিব্রত আছি। অপরদিকে কাজের মেয়াদ শেষ হলেও কাজ সম্পন্ন হয়নি। তার কার্যাদেশ বাতিলের সম্ভাবনা রয়েছে। উন্নয়ন কাজটি এলাকাবাসীর সম্পদ।

এ বিষয়ে নিযুক্ত ঠিকাদার ফজলুল কবির এর সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি অনিয়মের কথা এড়িয়ে যান এবং কথা বলতে অনীহা প্রকাশ করে অন্য দিকে কথাবার্তা বলা শুরু করেন এবং ফোন কেটে দিয়ে অফ করে দেন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *