কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশের উদ্যোগে এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি সন্তানদের ও কৃতিত্বপূর্ন পুলিশদের সংবর্ধনা। আইসিটি নিউজ

অপরাধ ও দুর্নীতি আইসিটি সংবাদ জাতীয়

আইসিটি নিউজ: এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম’র উদ্যোগে জেলা পুলিশ কুড়িগ্রামে কর্মরত পুলিশ পরিবারে এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি সন্তানদের  সংবর্ধনা দেয়া হয়। একই অনুষ্ঠানে রংপুর রেন্জ কর্তৃক নির্বাচিত কৃতিত্বপূর্ন ও করোনাকালিন কার্যক্রমে  বিশেষ অবদান রাখার জন্য পুলিশ সদস্যদের সম্মাননা ক্রেস্ট এবং অর্থ  পুরস্কার বিতরনের আয়োজন  করা হয়।

জানা যায়, ২৭ জুন ২০২০ ইং শনিবার বিকেলে পুলিশ সুপার হল রুমে কৃতিত্বপুর্ন কাজের স্মীকৃতি স্বরুপ  পুলিশ সদস্যদের এবং একই সাথে  তাদের কৃতি  সন্তানদের উপহার হিসেবে ক্রেস্ট, নগদ অর্থ ও ফুল দিয়ে সুন্দর পরিবেশে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ কুড়িগ্রামের মাননীয় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম। জেলা পুলিশের অন্যান্য উর্ধতন কর্মকর্তা ও অফিসারগণও এসময়  উপস্থিত ছিলেন।

কৃতিত্বপূর্ণ পুলিশ সদস্য ও তাদের কৃতি সন্তানদের নিয়ে এরকম ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠান গোটা জেলা পুলিশের একটি গর্বিত পুলিশ পরিবারের অনুষ্ঠানে পরিনত হয়। যা ছিলো জেলা পুলিশ কুড়িগ্রামে কর্মরত প্রতিটি সদস্যের  জন্য এক প্রেরনা। এক একজন পুলিশ সদস্যের মধ্যে পুরো পরিবারকে সাথে নিয়ে কৃতিত্বপূর্ন কর্মকান্ডের মাধ্যমে এগিয়ে যাওয়ার নতুন এক স্বপ্নের সূচনা করলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায়  উপস্থিত সকল পুলিশ কর্মকর্তাদের বক্তব্যে এমন কথাই উচ্চারিত হতে থাকে।

অনুষ্ঠানের মুল অংশে কুড়িগ্রাম জেলায় কর্মরত পুলিশ সদস্য সন্তানদের মধ্যে “এসএসসি পরীক্ষা-২০২০” এ অংশগ্রহণ করে জিপিএ-৫  অর্জন করেছে, এমন ১৮ জন কৃতি সন্তানকে পুলিশ সুপার কুড়িগ্রাম সংবর্ধনা  দিয়ে তাদের পুরস্কৃত করেন। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে  তিনি নিজের  অভিজ্ঞতার আলোকে সন্তানদের  উচ্চতর শিক্ষায় শিক্ষা অর্জনে উৎসাহ ও প্রেরনা যোগাতে অনুপ্রানিত করেন এবং শিক্ষনীয় বেশকিছু বিষয়ে  দিকনির্দেশনা মুলক বক্তব্য  প্রদান করেন। একই সময়ে পুলিশ সদস্যদের কৃতিত্বপূর্ন কাজের জন্য যারা পুরস্কৃত হলেন তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি সকল পুলিশ সদস্যকে জনতার পুলিশ হয়ে সেবামুলক কাজে ও পুলিশের মানোন্নয়নে নিজেদের মেধা শ্রম ও বিচক্ষনতা দিয়ে কাজ করার আহবান জানান।

কৃতিত্বপূর্ন কাজের জন্য যারা পুরস্কৃত হলেন:

১। শ্রেষ্ঠ সার্কেল অফিসার, উৎপল কুমার রায়, সদর সার্কেল,কুড়িগ্রাম।

২। শ্রেষ্ঠ এএসআই ও শ্রেষ্ঠ মাদক এবং চোরাচালান উদ্ধারকারী অফিসার, মোঃ আব্দুস সালাম, রৌমারী থানা।

৩। ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেফতারকারী, এসআই মোঃ আব্দুল মতিন, রৌমারী থানা।

৪। করোনাকালীন সেবা, এসআই (সশস্ত্র) মনছুর আলী, ডি-স্টোর কুড়িগ্রাম।

৫। করোনাকালীন সেবা, এটিএসআই কামরুল, সদর ফাঁড়ী, কুড়িগ্রাম।

৬।করোনাকালীন সেবা, এসআই আলমগীর আর,ও-১ রিজার্ভ অফিস, কুড়িগ্রাম।

৭। করোনাকালীন সেবা, কনস্টেবল মোঃ মোস্তাকুর রহমান, পুলিশ হাসপাতাল, কুড়িগ্রাম।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মার্চ এপ্রিল ও মে এই তিন মাসের মাসিক মুল্যায়ন করে পুলিশ রেন্জ  রংপুর অফিস থেকে প্রেরিত কৃতিত্বপূর্ন কাজের স্বীকৃতি স্বরুপ ক্রেস্ট ও নগদ উপহার অর্থ কৃতিত্বপূর্ন সাত জন পুলিশ সদস্যদের হাতে  তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মানবিক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম।

পুলিশ সুপার তার বক্তব্যে শ্রদ্ধা সহ মাননীয় ডিআাইজি দেবদাস ভট্টাচার্য, মাননীয় আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মুজিববর্ষের শুভেচ্ছা ও আন্তরিক অভিনন্দন  জানিয়ে এ অনুষ্ঠানের  সমাপ্তি  করেন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *