রাজশাহীর শাহমুখদুম থানার সামনে গায়ে আগুন দেয়া শিক্ষার্থীর মৃত্যু- নাচোলের খান্ধুরায় আতঙ্কে সাখাওয়াতের স্বজনরা। আইসিটিনিউজ বিডি২৪

অপরাধ ও দুর্নীতি আইসিটি সংবাদ শিক্ষাঙ্গন

আইসিটিনিউজ বিডি২৪: মোঃ মনিরুল ইসলাম নাচোল-চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ রাজশাহীতে কলেজ শিক্ষার্থী লিজা নিজ শরীরে আগুন দিয়ে আতহত্যার আলোচিত সংবাদের পর নাচোলের খান্দুরায় আতংকে সাখাওয়াতে পরিবার ও স্বজনরা।
গত শনিবার রাজশাহীর মেট্রোপলিটন শাহমুখদুম থানায় স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দিতে গিয়ে থানা পুলিশ মামলা না নেয়ায় এক মেয়ে শিক্ষার্থী লিজা (১৯) নিজ শরীরে আগুন ধরিয়ে থানার সামনে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। শেষ পর্যন্ত ৪/৫ দিন জীবনের সাথে লড়াই করে ঢামেক হাসপাতালে গতকাল বুধবার সকালে মারা যায়। এ-ঘটনায় আসামী করা হয়েছে স্বামী সাখাওয়াত হোসেনসহ তার বাবা-মাকে। এদিকে লিজার আত্মহত্যা কান্ডের পর আতঙ্কে আছে স্বামী সাখাওয়াতের পরিবার ও স্বজনরা। সাখাওয়াতের গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার কসবা ইউনিয়নের খান্ধুরা গ্রামে।
তথ্যনুস্ন্ধানে জানাগেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার খান্ধুরা গ্রামের মাহবুবুর রহমান খোকনের ছেলে শাখাওয়াত হোসেন রাজশাহী সিটি কলেজের দাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী । ভালোবাসার সুবাদে গত জানুয়ারী মাসে তার বন্ধুবান্ধবকে সাথে নিয়ে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ থানার প্রধান পাড়ার লিজার পালক পিতার গ্রামের বাড়িতে গিয়ে বিয়ে করেন সে। লিজা রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থী।
এদিকে সাখাওয়াতের পরিবার তাদের ভালোবাসার বিয়ে মেনে নিতে পারেনি। এক পর্যায়ে সাখাওয়াত ভালোবাসার মানুষ লিজাকে রাজশাহীতে রেখে নাচালের খান্ধুরা গ্রামের বাড়িতে পালিয়ে আসেন।
সাখাওয়াতের গ্রামের বাড়ি ছাড়াও রাজশাহীর বেলদার পাড়ার একটি নিজস্ব বাড়ি রয়েছে। সে বাসাবাড়িতে যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে অবশেষে লিজা ১মাস পূর্বে স্বামী সাখাওয়াতের গ্রামের বাড়ি নাচোলের খান্দুরাতে উপস্থিত হয়। সেখান থেকে সাখাওয়াত পালিয়ে গেলে এলাকার মেম্বার বিষয়টি নাচোল থানা পুলিশকে অবহিত করে। এসময় নাচোল থানার কর্তব্যরত অফিসার ইনচার্জ তদন্ত মিন্টু রহমান সাখাওয়াতের জিম্মায় লিজাকে পাঠিয়ে দেয়।

সাখাওয়াত লিজাকে নিয়ে রাজশাহী চলে যাওয়ার কয়েকদিন পর আবারো তাদের মাঝে দ্বন্দ্ব দেখা দেয় বলে ওসি তদন্ত মিন্টু রহমান জানান। মিন্টু রহমান জানান, মোবাইল ফোনে কখনো লিজা আবার কখনো সাখাওয়াত পরস্পরে আত্মহত্যার হুমকী দিতো বলে জানান।
¬গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের প্রধান পাড়ার নিঃসন্তান আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের পালিত মেয়ে লিজা রহমান স্বামীর পরিবারের পক্ষ থেকে প্রতারিত ও থানা পুলিশের নিকট থেকে বিচার না পেয়ে আত্মহত্যা করেই প্রতিবাদ করে গেলো। এদিকে লিজার মৃত্যুর পর থেকে স্বামী সাখাওয়াতের পরিবার সম্পর্কে এলাকারকেউ মুখ খুলছে না। চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার খান্ধুরা গ্রামের বাড়িতে ঝুলছে তালা । লিজাকে মারধোর করার ও হুমকি দেয়া
সাখাওয়াতের দুলাভাই সেও এখন লাপাত্তা।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *